top of page

চাকরির পাশাপাশি এই ব্যবসা শুরু করলে অল্প সময়ে হয়ে যাবেন কোটিপতি

করোনার পর থেকেই সব সেক্টরেই চাকরি নিয়ে অনিশ্চয়তা চলছে ৷ ফলে স্বাভাবিক ভাবেই সকলেই চাকরির পাশাপাশি আরও একাধিক উপায়ে উপার্জনের চেষ্টা করে চলছেন ৷ আপনিও কি চাকরির পাশাপাশি বাড়তি আয়ের কথা ভাবছেন ? তাহলে আপনার জন্য রয়েছে দুর্দান্ত অফার ৷


পেঁয়াজ পেস্টের ব্যবসা শুরু করে আপনিও বিপুল টাকা আয় করতে পারবেন ৷ আজকাল সকলেই ছুটছেন ৷ ফলে সব ক্ষেত্রে রেডিমেড জিনিসের বিপুল চাহিদা রয়েছে ৷


বেশিরভাগ রান্নায় পেঁয়াজ লাগে ৷ ফলে প্যাকেটজাত পেঁয়াজের পেস্টের চাহিদা বাজারে তুঙ্গে ৷ আপনারও যদি ব্যবসার পরিকল্পনা থাকে তাহলে পেঁয়াজ পেস্টের ব্যবসার (Onion Paste Making Business) কথা ভাবতেই পারেন ৷ চাকরির পাশাপাশি সকাল বা বিকেলে কয়েক ঘণ্টা বের করতে পারলে সহজেই এই ব্যবসা শুরু করে মোটা টাকা আয় করতে পারবেন ৷


এই রিপোর্ট অনুযায়ী, পেঁয়াজ পেস্টের ব্যবসা ৪.১৯ লক্ষ টাকা দিয়ে শুরু করতে পারবেন ৷ পেস্ট তৈরির কারখানার জন্য এই শেড বানাতে হবে যার জন্য প্রায় ১ লক্ষ টাকা খরচা হবে ৷ আপনার কাছে আগে থেকেই কোনও বড় বিল্ডিং থাকলে এই ১ লক্ষ টাকা বেঁচে যাবে ৷


প্রায় ১.৭৫ লক্ষ টাকা পেস্ট তৈরির জন্য ফ্রাইয়িং প্যান, অটোক্লেভ স্টিম কুকার, স্টেরেলাইজেশন ট্যাঙ্ক, ছোট বাসন আরও জিনিস কেনার জন্য লাগবে ৷ ব্যবসা চালানোর জন্য ২.৭৫ লক্ষ টাকা নিজের কাছে লাগতে হবে ৷ এই টাকা কাঁচা মাল কেনার জন্য, প্যাকিং, ট্রান্সপোর্টেশনের জন্য লাগবে ৷


লোন দেবে সরকার-পেঁয়াজ পেস্ট তৈরির জন্য এক ইউনিট এক বছরে প্রায় ১৯৩ ক্যুইন্টাল পেস্ট তৈরি করে ৷ এই ব্যবসার সবচেয়ে বেশি সুবিধা হচ্ছে শুরু করার সময় বেশি টাকা লাগবে না ৷ পাশাপাশি সরকার মুদ্রা যোজনায় আপনাকে ব্যবসার জন্য লোন দেবে ৷


KVIC-র রিপোর্ট অনুযায়ী, বছরে প্রায় ৭.৫০ লক্ষ টাকার পেঁয়াজ পেস্ট বিক্রি করতে পারবেন ৷ সমস্ত খরচা বাদ দিলে আপনি ১.৭৫ লক্ষ টাকা লাভ করতে পারবেন ৷


Comments


bottom of page