top of page

কম বেতনেও বেশি সঞ্চয় সম্ভব! জেনে নিন টাকা সঞ্চয়ের ফর্মুলা।

নিজের ভবিষ্যতের জন্য অর্থ সঞ্চয় করে রাখতে চান প্রতিটি মানুষ। তবে এই দুর্মূল্যের বাজারে কম বেতনে সাধারণ মধ্যবিত্তের পক্ষে সমস্ত খরচ চালিয়ে অর্থ সঞ্চয় করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। আসলে সাধারণ মধ্যবিত্ত মানুষ বুঝে উঠতে পারেন না কম বেতনের মধ্যে কোন খাতে কতটা টাকা খরচ করলে নিজের ভবিষ্যতের জন্য কিছুটা সঞ্চয় করা সম্ভব হবে। অন্যদিকে নিজের ভবিষ্যতের জন্য কিছুটা টাকা সঞ্চয় করে রাখা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। তাই নিজের বেতন এবং সঞ্চয়ের মধ্যে কিছুটা ভারসাম্য রাখতে পারলে সঞ্চয়ের কাজ থেকে সঠিক ভাবে করা সম্ভব হয়।


সঞ্চয় করার ক্ষেত্রে অনেকেই নিজের কম বেতনের জন্য পিছিয়ে আসেন। তাই অনেকেই ভাবেন আয় বৃদ্ধি হওয়ার পরেই তিনি সঞ্চয় শুরু করবেন। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় আয় বাড়লে ব্যয়ের পরিমাণও বাড়ে। তাই কোন সময়ই ভবিষ্যতের জন্য অর্থ সঞ্চয় করে ওঠা হয় না। তাই নিজের বেতন কাঠামো অনুসারে এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে দেখে নিন আপনার সঞ্চয়ের হিসাবটি ঠিক কেমন হতে পারে।


২০ হাজার টাকা বেতনের ক্ষেত্রে সঞ্চয়

বর্তমানে এই দূর্মূল্যের বাজারে অনেকেই মনে করেন সংসার করো চালিয়ে কুড়ি হাজার টাকা বেতনে সঞ্চয় করা সম্ভব নয়। কিন্তু এ ধারণা একেবারেই সঠিক নয়। সঞ্চয়ের ক্ষেত্রে আসলে একটি ফর্মুলা মেনে চললে বেতন যত কমই হোক না কেন, সঞ্চয়ের ক্ষেত্রে অবশ্যই সফল হওয়া যায়। তবে সঞ্চয় করার জন্য নিজের বেতন মাসের শুরুতে হাতে আসার সঙ্গে সঙ্গেই নির্দিষ্ট কিছুটা পরিমাণ টাকা অন্য অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেওয়া উচিত। অতিরিক্ত টাকা নিজের কাছে থেকে গেলে কোন না কোন ভাবে তা খরচ হয়ে যায়। তাই নিজের থাকা এমন একটি অ্যাকাউন্ট, যার সঙ্গে কোনো UPI লিংক নেই, সেখানে নিজের বেতন আসার পরেই কিছুটা টাকা রেখে দিলে তা সঞ্চয় করা সম্ভব।

এক্ষেত্রে নিজের বেতনের ১০ শতাংশ সঞ্চয় শুরু করা উচিত। বেতনের পরিমাণ যদি ২০ হাজার টাকা হয় সে ক্ষেত্রে মাসিক ২০০০ টাকা জমানো যেতেই পারে। প্রথম ছয় মাসে দু হাজার টাকা করে জমালে অনেকটাই টাকা সঞ্চিত থাকবে।

৩০ হাজার টাকা বেতনের ক্ষেত্রে সঞ্চয়

৩০ হাজার টাকা বেতনের ক্ষেত্রে সঞ্চয় করতে গেলে চাকরিজীবীদের মাসিক বেতনের অন্তত ৩০ শতাংশ সঞ্চয়ের জন্য রেখে দেওয়া উচিত। অর্থাৎ ৩০ হাজার টাকা বেতনের ক্ষেত্রে মাসিক ৯ হাজার টাকা সঞ্চয় করলে নিজের ভবিষ্যৎ আর্থিক দিক থেকে সুরক্ষিত হবে। ৩০ শতাংশের কম সঞ্চয় শুরু করলে কখনোই নিজের ভবিষ্যৎকে আর্থিক দিক থেকে সুরক্ষিত করা সম্ভব হয়ে উঠবে না।

অর্থ সঞ্চয় প্রক্রিয়া পরিচালনা

নিজের ভবিষ্যতের জন্য অর্থ সঞ্চয় করে রাখার জন্য একটি পরিকল্পনা করে রাখা অবশ্যই প্রয়োজন। সঞ্চয়ের কাজ যারা প্রথম শুরু করেন তাদের পক্ষে একবারে অনেকটা টাকা জমিয়ে নেওয়া সম্ভব হয় না। তাই প্রথমে নিজের বেতনের দশ শতাংশ টাকা সঞ্চয় থেকে শুরু করা উচিত। প্রতি ৬ মাস অন্তর এই পরিমাণটি বাড়িয়ে অন্তত ৩০ শতাংশ পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া উচিত। এ লক্ষ্যে এগিয়ে গেলে নির্দিষ্ট সময় পর নিজের ব্যয়ের অভ্যাস এর পাশাপাশি ভবিষ্যৎ ও আর্থিক দিক থেকে সুরক্ষিত হবে।

Comments


bottom of page